dark_mode
Wednesday, 17 August 2022
Logo
বিশ্বজুড়ে উর্ধ্বমুখী করোনা, বাড়ছে মৃত্যু

ছবিঃ সংগৃহীত

বিশ্বজুড়ে উর্ধ্বমুখী করোনা, বাড়ছে মৃত্যু

চলমান করোনা মহামারিতে বিশ্বজুড়ে আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা। একইসাথে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যাও বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আটশোর বেশি মানুষ। একই সময়ে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে পৌনে ৫ লাখ।

 

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে জার্মানিতে। অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ফ্রান্স। প্রাণহানির তালিকায় এরপরই রয়েছে ব্রাজিল, তাইওয়ান, ইতালি ও রাশিয়া। এতে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৫৫ কোটি ৫২ লাখের ঘর। অন্যদিকে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৬৩ লাখ ৬২ হাজার।

 

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) সকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৮০৪ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় আড়াইশো। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৬৩ লাখ ৬২ হাজার ৪৩৭ জনে।

 

একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ লাখ ৭৬ হাজার ৫৫৫ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় দেড় লাখ। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৫ কোটি ৫২ লাখ ৩৩ হাজার ৮৬৫ জনে।

 

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে জার্মানিতে। এই সময়ের মধ্যে দেশটিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৪৭ হাজার ৪৮৯ জন এবং মারা গেছেন ১০২ জন। করোনা মহামারির শুরু থেকে ইউরোপের এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২ কোটি ৮৫ লাখ ৪২ হাজার ৪৮৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ লাখ ৪১ হাজার ৩৯৭ জন মারা গেছেন।
#এওয়াই

Share this news

Print this news

  • comment / reply_from

    face comment

    দেশে করোনায় ২ জনের ‍মৃত্যু, শনাক্ত ২ হাজার ১০১ জন

    ডিবিবি

    দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় ২ জনের ‍মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৯ হাজার ১৪২ জনে।

     

    এ সময়ে আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ১০১ জন। মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ লাখ ৬৭ হাজার ২৭৪ জনে। শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ২০ শতাংশ।


     
    সোমবার (২৭ জুন) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। মারা যাওয়া দুই জনই ঢাকার বাসিন্দা। এর মধ্যে একজন নারী, একজন পুরুষ।

     

    বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ১৭৯ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ৬ হাজার ৮৬৭ জন।

     

    ২৪ ঘণ্টায় ১৩ হাজার ৯২০টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ১৩ হাজার ৮২০টি নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ২০ শতাংশ। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৭৫ শতাংশ।

     

    ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম ৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ওই বছরের ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। ২০২১ সালের ৫ ও ১০ আগস্ট দুদিন সর্বাধিক ২৬৪ জন করে মারা যান।
    #এওয়াই

    ২৪ ঘন্টায় ৭৯১০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৬ লাখের বেশি

    ডিবিবি

    করোনাভাইরাসে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে আরও সাত হাজার ৯১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মহামারির শুরু থেকে ভাইরাসটিতে মোট মৃত্যু বেড়ে পৌঁছেছে ৬০ লাখ নয় হাজার ৮৩৭ জনে।

     

    ভাইরাসটিতে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন আরও ১৬ লাখ ৪৩ হাজার ৮৯৮ জন। বিশ্বে মোট শনাক্ত বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৪ কোটি ৪০ লাখ ২৯ হাজার ২৫১ জনে।

     

    একই সঙ্গে একদিনে করোনা থেকে সেরে উঠেছেন ১৭ লাখ ২০ হাজার ১২৩ জন। এ নিয়ে করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৭ কোটি ৬৬ লাখ ৭৯ হাজার ৮৩৩ জনে।

     

    শনিবার (৫ মার্চ) সকালে বৈশ্বিক পর্যায়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার নিয়মিত আপডেট দেওয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

     

    করোনায় একদিনে সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়ায়। ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে শনাক্ত হয়েছেন দুই লাখ ৬৬ হাজার ৮৩৮ জন। এসময়ে মারা গেছেন ১৮৬ জন। দেশটিতে এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত ৩৯ লাখ ৫৮ হাজার ৩২৬ জন এবং মৃত্যু হয়েছে আট হাজার ৫৮০ জনের।

    করোনায় আরও ৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৭৯৯

    ডিবিবি

    করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সারাদেশে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় আটজনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের মধ্যে পুরুষ পাঁচজন ও নারী তিনজন। তাদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে ছয়জন এবং বেসরকারি হাসপাতালে মারা যান দুজন। এ নিয়ে মহামারি শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৯ হাজার ৪৫ জনে দাঁড়িয়েছে।

     

    একই সময় নতুন করে এ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৭৯৯ জন। এ নিয়ে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ১৯ লাখ ৪৪ হাজার ৩৭৪ জনে। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৩ দশমিক ৩৫ শতাংশ।

     

    মঙ্গলবার (১ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনা পরিস্থিতি সংক্রান্ত নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

     

    এর আগে সোমবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) ২৪ ঘণ্টায় চারজনের মৃত্যু এবং ৮৯৭ জন নতুন রোগী শনাক্তের তথ্য জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে দৈনিক শনাক্তের হার ছিল ৩ দশমিক ৬৫ শতাংশ।

     

    স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশের ৮৭৬টি ল্যাবরেটরিতে ২৩ হাজার ৮৮৩টি নমুনা সংগ্রহ করা হয় এবং ২৩ হাজার ৮১৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে দেশে মোট এক কোটি ৩৪ লাখ ২৫ হাজার ১৫৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। মহামারি শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৪৮ শতাংশ।

     

    এদিকে, একদিনে করোনা থেকে সেরে উঠেছেন সাত হাজার ৪৬০ জন। এ নিয়ে দেশে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৮ লাখ ২২ হাজার ১২৫ জন।

     

    বিভাগওয়ারি হিসাবে ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের একজন, চট্টগ্রামের তিনজন, রাজশাহীর দুজন, খুলনার একজন, ময়মনসিংহের একজন। তবে সিলেট, রংপুর, বরিশালে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে কেউ মারা যাননি। বয়স অনুযায়ী মৃতদের মধ্যে শূন্য থেকে ১০ বছর বয়সী একজন, বিশোর্ধ্ব একজন, চল্লিশোর্ধ্ব একজন, ষাটোর্ধ্ব দুজন, সত্তরোর্ধ্ব তিনজন।

     

    ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর তথ্য জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

    বিশ্বে একদিনে করোনায় আক্রান্ত ১৬ লাখ, মৃত্যু ৮ হাজার

    ডিবিবি

    বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৮ হাজার ৩৫৯ জন এবং নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ১৬ লাখ ১০ হাজার ২৮৭ জন।

     

    শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে বৈশ্বিক পর্যায়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার আপডেট দেওয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

     

    সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসটিতে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৩ কোটি ৩৬ লাখ ১৪ হাজার ৮৮৩ জনে। আর বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৯ লাখ ৫৭ হাজার ৩০০ জনে। এ সময়ে করোনা থেকে সেরে ওঠেছেন ৩৬ কোটি ৩১ লাখ ৬ হাজার ৩২ জন।

     

    গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে জার্মানিতে। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্র দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে রয়েছে। প্রাণহানির তালিকায় এরপরই রয়েছে ব্রাজিল, রাশিয়া, মেক্সিকো, স্পেন, ভারত ও তুরস্ক।

     

    জার্মানিতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ লাখ ৯৩ হাজার ৯৯ জন। আর মারা গেছেন ২৩৫ জন। দেশটিতে এ পর্যন্ত ১ কোটি ৪৫ লাখ ৪ হাজার ১৫১ জনের করোনা শনাক্ত এবং ১ লাখ ২৩ হাজার ১৩০ জন মারা গেছেন।

     

    গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে থাকা যুক্তরাষ্ট্রে ১ হাজার ৮৫৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এসময়ে দেশটিতে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৭৬ হাজার ২৫৮ জনে। করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশটিতে এ পর্যন্ত ৮ কোটি ৫ লাখ ৩২ হাজার ৩০৭ জন সংক্রমিত এবং মৃত্যু হয়েছে ৯ লাখ ৭২ হাজার ২০০ জনের।

     

    রাশিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১ লাখ ২৩ হাজার ৪৬০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আর মারা গেছেন ৭৮৭ জন। এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত ১ কোটি ৬০ লাখ ৫২ হাজার ২৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৪৯ হাজার ৩৯৫ জনের।

     

    আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা গেছেন ৭৮১ জন এবং নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৯০ হাজার ১৯৯ জন। এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট শনাক্ত ২ কোটি ৮৬ লাখ ৭১ হাজার ১৯৪ জন। আর মারা গেছেন ৬ লাখ ৪৮ হাজার ২৬৭ জন।

     

    আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যার তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে থাকা প্রতিবেশী দেশ ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১০ হাজার ৩৯৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আর একই সময়ে মারা গেছেন ২৫৪ জন। এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ৪ কোটি ২৯ লাখ ৪ হাজার ৭৪৪ জনে। আর মারা গেছেন মোট ৫ লাখ ১৩ হাজার ৫১২ জন।

     

    এদিকে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৯ হাজার ১৬ জনে। একই সময় নতুন করে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে এক হাজার ৪০৬ জনে। দেশে এখন পর্যন্ত মোট ১৯ লাখ ৪১ হাজার ৫৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

     

    উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। চীনে করোনায় প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যু হয় ২০২০ সালের ৯ জানুয়ারি। তবে তার ঘোষণা আসে ১১ জানুয়ারি। এরপর ১৩ জানুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে। পরে বিভিন্ন দেশে করোনা ছড়িয়ে পড়ে। করোনার প্রাদুর্ভাবের পরিপ্রেক্ষিতে ৩০ জানুয়ারি বৈশ্বিক স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

    ২৪ ঘন্টায় আরও ৫২৭৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত প্রায় ১৩ লাখ

    ডিবিবি

    করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে আরও ৫ হাজার ২৭৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। মহামারি শুরুর পর থেকে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৯ লাখ ৬ হাজার ৯৩ জনে। একই সময়ে নতুন করে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১২ লাখ ৭৯ হাজার ৯৭৯ জন। এ নিয়ে মোট শনাক্ত বেড়ে দাঁড়ালো ৪২ কোটি ৪৯ লাখ ৯০ হাজার ২৮৫ জনে।

     

    সোমবার (২০ ফেব্রুয়ারি) সকালে বৈশ্বিক পর্যায়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার আপডেট দেওয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

     

    ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু এবং সবচেয়ে বেশি করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে রাশিয়াতে। রাশিয়ায় ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন এক লাখ ৭০ হাজার ৬৯৯ জন এবং মারা গেছেন ৭৪৫ জন। দেশটিতে এ পর্যন্ত এক কোটি ৫৩ লাখ ৭০ হাজার ৪১৯ জন শনাক্ত এবং মারা গেছেন তিন লাখ ৪৫ হাজার ৫০০ জন।

     

    করোনায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্রে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ৫৬ জন এবং মারা গেছেন ২৮২ জন। দেশটিতে এ পর্যন্ত ৮ কোটি ৮৭ হাজার ৬১৭ জন শনাক্ত এবং ৯ লাখ ৫৯ হাজার ৪১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫ কোটি ১৬ লাখ ৭৩ হাজার ৯৫৫ জন।

    বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ৫৯ লাখ ছাড়ালো

    ডিবিবি

    চলমান মহামারি করোনা ভাইরাসের ভয়াল থাবায় বিশ্বজুড়ে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা হ্রাস পেয়েছে। একই সঙ্গে আগের দিনের তুলনায় উল্লেখযোগ্য পরিমাণে কমেছে প্রাণঘাতী ভাইরাসে নতুন সংক্রমিত রোগীর সংখ্যাও। গেল ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে কোভিড শনাক্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন প্রায় আট হাজার মানুষ। নির্ধারিত এই সময়ের মধ্যে রোগটিতে নতুন করে আক্রান্ত রোগীদের সংখ্যা প্রায় সোয়া ১৫ লাখে নেমে এসেছে।

     

    সর্বশেষ এক দিনে বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে রাশিয়াতে। এ দিকে দৈনিক প্রাণ হারানোদের তালিকায় আচমকা শীর্ষস্থানে উঠে এসেছে ব্রাজিলের নাম। আর প্রাণহানির তালিকায় এরপরই রয়েছে যথাক্রমে- রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, মেক্সিকো, পোল্যান্ড, তুরস্ক এবং দক্ষিণ আফ্রিকা। এতে বিশ্বব্যাপী রোগটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৪২ কোটি ৩৫ লাখের ঘর ছাড়িয়েছে। অপর দিকে মৃতের সংখ্যাও এরই মধ্যে ৫৯ লাখে পৌঁছে গেছে।

     

    রবিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে মৃত্যু, আক্রান্ত ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডো মিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, শেষ ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে কোভিড সংক্রমিত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন সাত হাজার ৮১৫ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় আড়াই হাজার কমেছে। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা ৫৯ লাখ ১৬৭ জনে পৌঁছেছে।

     

    নির্ধারিত এই সময়ের মধ্যে প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ১৫ লাখ ৩৬ হাজার ৯০০ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় রোগটিতে নতুন আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রায় চার লাখ কমেছে। মহামারির তাণ্ডব শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসটিতে শনাক্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে ৪২ কোটি ৩৫ লাখ দুই হাজার ২৫৬ জনে দাঁড়িয়েছে।

     

    এ দিকে গেল ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনার থাবায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটল রাশিয়ায়। একই সময়ে রুশ ভূখণ্ডে রোগটিতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ৭৯৮ জন। আর নতুন করে কোভিড সংক্রমিত হয়েছেন এক লাখ ৭৯ হাজার ১৪৭ জন। এছাড়া মহামারির তাণ্ডব শুরুর পর থেকে দেশটিতে এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা এক কোটি ৫১ লাখ ৯৯ হাজার ৭২০ জনে দাঁড়িয়েছে। আর মৃত্যু হয়েছে তিন লাখ ৪৪ হাজার ৭৫৫ জনের।

     

    অপর দিকে শেষ এক দিনে বিশ্বে সবচেয়ে বেশি প্রাণহানির ঘটনা দেখেছে ব্রাজিলের জনগণ। করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ল্যাটিন আমেরিকার এই দেশ। শেষ এক দিনে দেশটিতে কোভিড আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ৮২৭ জন। আর নতুন করে রোগটিতে সংক্রমিত হয়েছেন এক লাখ তিন হাজার ৩৬৩ জন। অপর দিকে মহামারির তাণ্ডব শুরুর পর থেকে দেশটিতে এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দুই কোটি ৮১ লাখ ৬৭ হাজার ৫৮৭ জনে দাঁড়িয়েছে। আর মৃত্যু হয়েছে ছয় লাখ ৪৩ হাজার ৯৩৮ জনের।

     

    গেল ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাষ্ট্রে করোনার সংক্রমণ ও প্রাণহানি কিছুটা হ্রাস পেয়েছে। একই সময়ে মার্কিন ভূখণ্ডে নতুন করে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৪১ হাজার ৪৪৩ জন। আর মারা গেছেন ৭১৫ জন। করোনা ভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশটিতে এ পর্যন্ত আট কোটি ৭২ হাজার ৫৬১ জন রোগটিতে আক্রান্ত বলে শনাক্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন নয় লাখ ৫৯ হাজার ১৩০ জন।

     

    গত এক দিনে পশ্চিম ইউরোপের দেশ জার্মানিতে নতুন করে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন এক লাখ ৩৭ হাজার ৭২২ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১৩৩ জন। করোনা মহামারির তাণ্ডব শুরুর পর থেকে দেশটিতে এ পর্যন্ত এক কোটি ৩৪ লাখ ৯৮ হাজার ৩০০ জন রোগটিতে আক্রান্ত বলে শনাক্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন এক লাখ ২১ হাজার ৮২৬ জন।

     

    করোনায় সংক্রমিতদের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে দক্ষিণ এশিয়ার ঘনবসতিপূর্ণ দেশ ভারত। যদিও প্রাণঘাতী ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারানোদের সংখ্যার তালিকায় দেশটির অবস্থান তৃতীয়। শেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে কোভিড শনাক্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ৬৭৩ জন। আর নতুন করে রোগটিতে সংক্রমিত হয়েছেন ১৮ হাজার ৪৮৮ জন। মহামারির তাণ্ডব শুরুর পর থেকে দেশটিতে এ পর্যন্ত মোট আক্রান্ত হয়েছেন চার কোটি ২৮ লাখ ২০ হাজার ৯৯৩ জন। এদের মধ্যে মারা গেছেন চার লাখ ১১ হাজার ৯৩৫ জন।

     

    ব্রিটেনে গত এক দিনে নতুন করে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৩৪ হাজার ৩৭৭ জন। আর মারা গেছেন ১২৮ জন। করোনা মহামারির তাণ্ডব শুরুর পর থেকে যুক্তরাজ্যে এ পর্যন্ত এক কোটি ৮৫ লাখ ৮০ হাজার ২১৬ জন রোগটিতে আক্রান্ত বলে শনাক্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন এক লাখ ৬০ হাজার ৫০৭ জন। একই সময়ের মধ্যে ইউক্রেনে নতুন করে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৩১ হাজার ১২৫ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২৬০ জনের।

     

    শেষ এক দিনে ইউরোপের মুসলিম রাষ্ট্র তুরস্কে নতুন করে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৮০ হাজার ৪৫৪ জন এবং প্রাণ গেছে ২৭৮ জন। একই সময়ে অঞ্চলটির আরেক দেশ ইতালিতে নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৫০ হাজার ৫৩৪ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ২৫২ জন।

     

    এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ইউরোপীয় রাষ্ট্র ফ্রান্সে নতুন করে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ৭৬ হাজার ৬৩৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১৪৮ জনের। করোনা মহামারির তাণ্ডব শুরুর পর থেকে দেশটিতে এ পর্যন্ত দুই কোটি ২২ লাখ ২৭ হাজার ৮২৬ জন রোগটিতে আক্রান্ত বলে শনাক্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন এক লাখ ৩৬ হাজার ৫৯৪ জন। শেষ এক দিনে কলম্বিয়ায় নতুন করে কোভিড আক্রান্ত হয়েছেন চার হাজার ৪৯৮ জন এবং প্রাণ গেছে ১২৭ জনের।

     

    এছাড়া করোনায় সংক্রমিত হয়ে শেষ এক দিনে পোল্যান্ডে ২৮৩ জন, আর্জেন্টিনায় ১২৩ জন, কানাডায় ২১ জন, গ্রিসে ৭৭ জন, জাপানে ২৩৫ জন, ইরানে ১৯১ জন, রোমানিয়ায় ১৪৬ জন, দক্ষিণ আফ্রিকায় ৩১৯ জন, চিলিতে ১২৯ জন, ফিলিপাইনে ১৯৮ জন এবং ইন্দোনেশিয়ায় ১৫৮ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। অন্য দিকে গেল ২৪ ঘণ্টায় উত্তর আমেরিকার দেশ মেক্সিকোতে মারা গেছেন ৪৫৭ জন। মহামারির তাণ্ডব শুরুর পর থেকে দেশটিতে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে তিন লাখ ১৫ হাজার ৫৫ জনের।

    উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে এশিয়ার পরাশক্তি চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর গত বছরের ১১ মার্চ প্রাণঘাতী ভাইরাসটিকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে।

    বিশ্বে ২৪ ঘন্টায় সংক্রমিত ১৯ লাখ,মৃত্যু ১০ হাজারের বেশি

    ডিবিবি

    বিশ্বে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমণ ও মৃত্যু দুটোই বেড়েছে। এসময়ে ১৯ লাখ ৫০৪ জন সংক্রমিত হওয়ার পাশাপাশি ভাইরাসটিতে মারা গেছেন ১০ হাজার ৫৫ জন। এ নিয়ে মহামারি শুরুর পর থেকে ভাইরাসটিতে মোট সংক্রমণ বেড়ে ৪১ কোটি ৫৭ লাখ ৭৮ হাজার ১৪৩ জন এবং মোট মৃত্যু বেড়ে ৫৮ লাখ ৫৫ হাজার ৭০৬ জনে দাঁড়িয়েছে।

     

    বুধবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে বৈশ্বিক পর্যায়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার আপডেট দেওয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

     

    আগের ২৪ ঘণ্টায় ৭ হাজার ৫২১ জনের মৃত্যু এবং সংক্রমিত হয়েছিলেন ১৪ লাখ ৫১ হাজার ৯৩৩ জন।

     

    করোনায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২ হাজার ২০২ জনের মৃত্যু হয়েছে। মহামারি শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে মোট মারা গেছেন ৯ লাখ ৪৯ হাজার ২৪৮ জন। গত একদিনে যুক্তরাষ্ট্রে নতুন সংক্রমিত ৯৪ হাজার ৮১৮ জন নিয়ে মোট সংক্রমণের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭ কোটি ৯৬ লাখ ২৯ হাজার ৬৪ জন।

    করোনায় আরও ৩৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৯৩৬৯

    ডিবিবি

    সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে পুরুষ ২৮ জন ও নারী ১০ জন। মৃত ৩৮ জনের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৩২ জন এবং বেসরকারি হাসপাতালে ৬ জন মারা যান। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়িয়েছে ২৮ হাজার ৬২৭ জনে।

     

    একই সময়ে করোনা শনাক্তে নমুনা পরীক্ষায় নতুন ৯ হাজার ৩৬৯ জন রোগী শনাক্ত হয়। শনাক্তের হার ২১ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ।

     

    সোমবার (৭ ফেব্রুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনা পরিস্থিতি সংক্রান্ত নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

     

    সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় সরকারি ও বেসরকারি ৮৬৮টি ল্যাবরেটরিতে ৪৪ হাজার ৬৭১টি নমুনা সংগ্রহ ও ৪৪ হাজার ৪৭১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ১ কোটি ২৭ লাখ ৭০ হাজার ৮৮০।

     

    ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত ও ১৮ মার্চ করোনা আক্রান্ত প্রথম রোগীর মৃত্যু হয়। ২০২০ সালের ৮ মার্চ থেকে ৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত নতুন রোগী শনাক্তের হার ১৪ দশমিক শূন্য ৬৫ শতাংশ।

    newsletter

    newsletter_description